গভীর রাতে রংপুর রেলওয়ে স্টেশনে প্লাটফর্মে থাকা ভাসমান প্রান্তিক দুস্থ ও অসহায় মানুষকে পবিত্র রমজানের সেহরি বিতরণ করল ছাত্রলীগ।

শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে বারোটায় রংপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান সিদ্দিকী  রনি নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে রেলওয়ে স্টেশনে প্রবেশ করেন।

এ সময় ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ প্লাটফর্মে শুয়ে থাকা মানুষকে ডেকে ডেকে তাদের হাতে সেহরি তুলে দেন। সেহরির প্যাকেট তুলে দেয়ার নেতৃবৃন্দ দুস্থদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সালাম দেন এবং তার জন্য দোয়া করতে বলেন।
গভীর রাতে এভাবে ছাত্র দের হাত থেকে সেহরি পেয়ে খুশিতে আত্মহারা হয়ে ওঠেন দুস্থ মানুষেরা। এ সময় তারা ছাত্রদের মাথায় হাত বুলিয়ে দোয়া করেন।

 

স্টেশন চত্বরে মাহবুব (৭০) নামে এক বৃদ্ধ খাবার পেয়ে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের মঙ্গল কামনায় সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করেন।

তিনি বলেন, অনেক সময় না খেয়ে থাকতে হয়। কেউ খাবার দিলে পেটে যায়, না দিলে অনাহারে থাকতে হয়। যারা এই মধ্যরাতে খাবার দিচ্ছেন আল্লাহ তাদের ভালো করুক।

 

শাপলা চত্বরে খাবার পেয়ে হাফিজুর রহমান (৫৫) বলেন, আল্লাহ ওমাগুলার (ওদের) ভালো করুক। যুগ যুগ বাঁচি থাউক। পীরগঞ্জ শাহ আব্দুর রউফ কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি ছাত্রলীগ নেতা ফয়সাল আহমেদ বলেন, রনির মত নিবেদিত ছাত্রলীগ নেতারাই সংগঠনের জন্য প্রয়োজন। কারণ তিনি নেতাকর্মীদের জন্য ইতিবাচক কাজ করে বেশ সুনাম কুঁড়িয়েছেন।

মেহেদি হাসান সিদ্দিকী রনি বলেন, দলীয় কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি রংপুরের আট উপজেলায় ছাত্রলীগের হাজারো নেতাকর্মীকে কাজে লাগিয়ে জনসেবা করছি। ইতিপূর্বে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে রংপুরের পীরগঞ্জ, মিঠাপুকুর, কাউনিয়া, বদরগঞ্জসহ উপজেলাগুলোতে অসহায়, দরিদ্র কৃষকের ধান কাঁটা-মাড়াই করে দিয়েছি। এছাড়াও ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে অসহায় রোগীদের আর্থিক ও ওষুধ সামগ্রী সহায়তাও দিচ্ছি। শুধু আন্তরিকভাবে উদ্যোগ নিলেই কাজগুলো গুছিয়ে করা সম্ভব। আমি মানুষের জন্য বিভিন্ন জনের কাছে হাত পেতে সহায়তা নিয়ে আসি।

তিনি আরও বলেন, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে মাসব্যাপী ইফতার ও সেহরি বিতরণ করা হবে। পাশাপাশি গত বছর থেকে করোনায় খাদ্য সহায়তা, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রীও বিতরণ করা হয় এবং সেটা চলমান। এ জন্য ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ভালোবাসায় রংপুর জেলা ছাত্রলীগ উত্তর জনপদে সুনাম অর্জন করেছে।