প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘উইটসা এমিনেন্ট পার্সনস অ্যাওয়ার্ড-২০২১’ পুরস্কারে ভূষিত হওয়ায় এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা এবং ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ‘অ্যাসোসিও লিডারশীপ অ্যাওয়ার্ড-২০২১’ পুরস্কার লাভ করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আনন্দ মিছিল করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

সোমবার (১৫ নভেম্বর) দুপুর ১২টায় এই আনন্দ মিছিল আয়োজন করে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন থেকে আনন্দ মিছিলটি শুরু হয়ে রাজু ভাস্কর্যে এসে শেষ হয়। আনন্দ মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় বলেন, বাংলাদেশের স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা বিশ্ব শান্তির অগ্রদূত বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যিনি বাংলাদেশকে বিশ্বদরবারে এক উচ্চ আসনে বসিয়েছেন। যিনি শুধু এদেশে নয় পৃথিবীর প্রত্যেকটি রাষ্ট্রের রাজনীতির মডেল হিসেবে পরিচিত। জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে এগিয়ে যাওয়ার জন্য বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সবসময় কাজ করে যাবে বলেও প্রতিশ্রুতি দেন জয়।

সমাবেশে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা গ্লাসগোতে অনুষ্ঠিত কপ-২৬ সম্মেলনে শুধু দেশরত্ন হিসেবে নয় বিশ্বরত্ন হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচি প্রণয়ন ও তা বাস্তবায়নে বলিষ্ঠ নেতৃত্বদান এবং তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষের জীবনমান উন্নয়নে অনন্য সাধারণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকার দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে বিশ্বের ৮০টি দেশের সদস্যভূক্ত সংগঠন ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনােলজি অ্যান্ড সার্ভিসেস অ্যালায়েন্স’ তথ্যপ্রযুক্তির অলিম্পিক খ্যাত ‘উইটসা-২০২১’ পুরস্কার লাভে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানান লেখক ভট্টাচার্য।

আনন্দ মিছিল ও সমাবেশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন সহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন আবাসিক হলের ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দসহ প্রায় পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।