রমজানে প্রতিদিনেই চবির সূর্য পশ্চিম আকাশে হেলে পড়তেই দেখা যায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপু লক ডাউনে ক্যম্পাসে আটকে পড়া ছাত্রলীগের কর্মী, সাধারণ শিক্ষার্থী ও ক্যম্পাস এরিয়ার নানা শ্রমজীবী মানুষদের সাথে নিয়ে সাথে নিয়ে একসাথে ইফতার আয়োজন করছেন।

সারেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দেশে চলমান কঠোর লকডাউনে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কিছু সাধারণ শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মীরা আটকা পড়েছেন। তাছাড়া এই করোনা মহামারীর সময়ে লকডাউন পরিস্থিতির কারণে ক্যম্পাসের গরীব-দুঃখী ও শ্রমজীবী মানুষদের অনেকটা অস্বচ্ছলতার মধ্যে জীবন-যাপন করতে হচ্ছে। তাদের সকলকে সাথে নিয়ে প্রথম রমজানের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে ইফতারের আয়োজন করে যাচ্ছেন চবি ছাত্রলীগ সেক্রেটারি ইকবাল হোসেন টিপু। রমজানের শেষদিন পর্যন্ত এ আয়োজন চলমান থাকবে বলে জানান ছাত্রলীগ সেক্রেটারি। এই দু:সময়ে ছাত্রলীগের সাধারণ কর্মীরা এবং ক্যম্পাসে আটকে পড়া শিক্ষার্থী ছাত্রলীগের এই উদ্যোগকে বেশ স্বাগত জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘করোনা ভাইরাসের কারণে লকডাউন হওয়ায় অধিকাংশ দোকানপাট বন্ধ থাকে। ইফতারের দোকানও সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে বন্ধ হয়ে যায়। ফলে সাধারণ শিক্ষার্থী, ছাত্রলীগ কর্মী ও আমাদের ক্যম্পাসের প্রিয় রিকশাচালক ভাইরা এবং দরিদ্র মানুষের একটি বিশাল অংশ ইফতারের সময়ে চরম অসুবিধার সম্মুখীন হন। তাদের কথা মাথায় রেখে আমার প্রিয় নেতা বীর চট্টলার অভিভাবক চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিনের দিক নির্দেশনায় আমার এই ইফতার আয়োজন। যতদিন শিক্ষার্থীরা ও ক্যম্পাসের মেহনতি ভাইয়েরা কষ্টে থাকবে ততদিন আমার এ আয়োজন চলমান থাকবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘দেশে যখনই কোনো দুর্যোগপূর্ণ মুহূর্ত এসেছে তখনই ছাত্রলীগ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নির্দেশে ছাত্রলীগ আগামীতেও সকলের পাশে থাকবে।’

প্রতি ইফতারে বাংলাদেশ ও সমগ্র মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনা এবং প্রিয় নেত্রীর সুস্থতা ও দীর্ঘায়ু করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।