জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে চট্রগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন।

চট্রগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর হোসেন তপু বলেন, মাত্র ১০ বছর বয়সে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট মানব ইতিহাসের নৃশংসতম হত্যাযজ্ঞে, কাপুরুষ – ঘাতকের বুলেটে ক্ষত-বিক্ষত হয়ে অন্য সবার সঙ্গে না ফেরার দেশে চলে যান শহিদ শেখ রাসেল। সেদিন বিশ্বের মায়া, মমতা হারিয়ে গিয়েছিলো, মানবতা হয়েছিলো নির্বাসিত – স্তব্ধ। ক্ষমতা দখল কিংবা রাজনৈতিক উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার জন্য পৃথিবীর ইতিহাসে বহু দেশে বিভিন্ন সময়ে রাজনৈতিক হত্যাকান্ড, সেনা অভ্যুত্থান হয়েছে। কিন্তু অন্ত্বসত্তা নারী ও কোমলমতি শিশু রাসেলসহ পুরো পরিবারের সঙ্গে বঙ্গবন্ধুকে যেভাবে হত্যা করা হয়েছে তা বিশ্বের ইতিহাসে বিরল।

চট্রগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগ এর সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম বলেন, শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে হয়তো বাবা ও বড় বোনের মতো দেশের নেতৃত্ব দিতেন, বাংলাদেশকে নিয়ে যেতেন অনন্য উচ্চতায়।আজ তার ৫৮ তম জন্মদিনে গভীর ভালোবাসা ও বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ করছি এবং তাঁর আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি।

এ সময় চট্রগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।