ইফতারের সময় হলেই গাইবান্ধার রাস্তা-ঘাটে দেখা মেলে ছাত্রলীগ নেতা আসিফ-মামুনের। প্রতিদিন পথচারীদের মধ্যে ইফতার বিতরণ করছেন গাইবান্ধা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আসিফ সরকার ও সাধারণ সম্পাদক মোসাদ্দেক হোসাইন মামুন।

ইফতারের ঠিক আগ মুহূর্তে শহরের বাস টার্মিনালের শ্রমিক, পথচারী, অটো, ভ্যান চালক ও দিনমজুরদের হাতে ইফতার তুলে দেন তারা। বিষয়টি গাইবান্ধায় ব্যাপক চাঞ্চল্যে’র সৃষ্টি করেছে। দলমত নির্বিশেষে সবাই তাদের প্রসংশায় পঞ্চমুখ।

দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রোজার শুরু থেকেই জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আসিফ ও সাধারণ সম্পাদক মামুন প্রতিদিন শতাধিক পথচারী, অটো ও ভ্যান চালকসহ দরিদ্র ব্যাক্তিদের মাঝে রান্না করা ইফতার (খিচুরী) বিতরণ করছেন। গত বছরগুলোতে পবিত্র রমজান মাসে বিভিন্ন আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের পর ইফতার বিতরণ ও ইফতার পার্টির আয়োজন করা হলেও এবার করোনার প্রভাবে তা সম্ভব হয়নি। তাই রাস্তা-ঘাটে প্রতিদিন পথচরীদের মাঝে ইফতার বিতরণ কর্মসূচি চলমান রয়েছে।

এ ব্যাপারে ছাত্রলীগ সভাপতি আসিফ সরকার জাগরণকে বলেন, ‘আমাদের মাসব্যাপী ইফতার বিতরণের এই উদ্যোগ পথচারীসহ সকলের মাঝে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। করোনা মহামারিতে এবার মানুষের অসহায়ত্ব ও দুর্দিনের কথা ভেবে জেলা ছাত্রলীগ সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, আমরা প্রতিদিন গরীব অসহায় রোজাদারদের হাতে ইফতার তুলে দিব। এখন পর্যন্ত সেটা করতে পেরেছি বলে খুব ভালো লাগছে। এজন্য ছাত্রলীগের সকল সহকর্মীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।’

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোসাদ্দেক হোসাইন মামুন বলেন, ‘প্রয়োজনের তাগিদে গাইবান্ধার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা অনেককেই দেখা যায় ইফতারের ঠিক আগ মুহূর্তে ইফতারের জন্য এদিক ওদিক ছোটা-ছুটি করছেন। তখন থেকেই ইচ্ছে ছিলো, ইফতারের ঠিক আগ মুহূর্তে এসব রোজাদারদের হাতে ইফতার তুলে দিবে গাইবান্ধা জেলা ছাত্রলীগ। সেই ইচ্ছে পূরণ হয়েছে ২০১৮ সাল থেকে। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নির্দেশনা মোতাবেক প্রতিদিন ইফতার বিতরণ করা হচ্ছে।’

বিগত চার বছর থেকে মাসব্যাপী ইফতার বিতরণ কর্মসূচি চলমান আছে জানিয়ে তিনি বলেন, এবার করোনার প্রভাবে সকল নিম্ন আয়ের মানুষ অর্ধাহারে অনাহারে দিন কাটাচ্ছেন। এরই মধ্যে রোজা আসায় গতবছর গুলোর ন্যায় এবারও মাসব্যাপী ইফতার বিতরণ কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে। ক্ষুধার্ত পথচারীদের হাতে ইফতার তুলে দিতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে হচ্ছে। ভবিষ্যতেও গাইবান্ধা জেলা ছাত্রলীগের এমন মহতি ও ব্যাতিক্রম উদ্যোগ যেন অব্যাহত থাকে সেজন্য সকলের কাছে তিনি দোয়া কামনা করেছেন।