কৃষকের ধান কেটে দিল ছাত্রলীগ কলাপাড়া উপজেলা কুয়াকাটা পৌরসভার ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা অসহায় কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দেন। এ বিষয় মোঃ সাইমুন ইসলামকে কুয়াকাটা পৌর ছাত্রলীগের কর্মীরা জানান- কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে কুয়াকাটা পৌর ছাত্রলীগ দরিদ্র কৃষকের প্রায় এক একর জমির বোরো ধান কেটে ঘরে তুলে দেয়।

ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কৃষকদের বোরো ধান কেটে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

এর পরিপ্রেক্ষিতে কুয়াকাটা পৌর ছাত্রলীগের আরিফ বিল্লাহ এর নেতৃত্বে দরিদ্র কৃষকের ধান কেটে দেওয়ার উদ্যোগ নেন। এ প্রসঙ্গে কুয়াকাটা পৌর ছাত্রলীগ জানান, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সব সময় মানুষের কল্যাণে কাজ করে থাকেন। গত বছরও আমরা রোজা অবস্থায় কৃষকের ধান কেটে দিয়েছিলাম। করোনাকালীন মহামারি ও লকডাউন কার্যকর শ্রমিক সংকটে দুশ্চিন্তায় ছিলেন ওই জমির মালিক। পরে কুয়াকাটা পৌর ছাত্রলীগ নেতা আরিফ বিল্লাহ কুয়াকাটা ৮ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ মোঃ কাওছার পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক মিরাজুল ইসলাম বাবু ও কুয়াকাটা পৌর ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দরা ও ছাত্রলীগের প্রায় শতাধিক নেতাকর্মী কৃষকের এক একর জমির ধান কেটে কৃষকের বাড়িতে পৌঁছে দেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

এ বিষয় ৮ নং ওয়ার্ডের সভাপতি সৈয়দ মোঃ কাওছার জানান, গতবারের করোনাকালীন যেভাবে আমরা কৃষকের পাশে ছিলাম, এ বছরও আমরা তৈরি আছি। যখনই খবর পাব তখনই আমরা কৃষকের শুধু ধান কাটাই নয়, অন্যভাবেও তাদের পাশে থাকব। পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক মিরাজুল ইসলাম বাবু জানান, কৃষকদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার বাস্তবায়ন ঘটাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নির্দেশে আমরা এই কার্যক্রম করি। কুয়াকাটা পৌর ছাত্রলীগ নেতা মোঃ আবুবকর আবির বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে এমনিতেই কৃষকরা অসহায় হয়ে পড়ছেন। ক্ষেতের পাকা ধান কাটার জন্য শ্রমিক না পাওয়ায় আমরা ছাত্রলীগ কর্মীরা কৃষকের ধান কেটে বাড়ি পৌঁছে দিয়েছি।

এমন সংকটে পড়া কৃষকের পাশে দাঁড়াবো আমরা। পরে ঐ কৃষক বলেন আমার ক্ষেতের ধান কাটতে পারছিলাম না শ্রমিকের অভাবে। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ধান কেটে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ায় আমি আনন্দিত। এ জন্য ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের কৃতজ্ঞতা জানাই।