আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছে ছাত্রলীগ।

বুধবার (২৩ জুন) সকালে রাজধানীর ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সময় নেতাকর্মীরা জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, শুভ শুভ শুভ দিন, আওয়ামী লীগের জন্মদিন, নেতা মোদের শেখ মুজিবসহ বিভিন্ন স্লোগান দেন। এ সময় সেখানে তারা কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন।

এ সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান হৃদয়, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের আহমেদ সহ সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ, বিশ্ববিদ্যালয় ও বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ছাত্রলীগ সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু-আওয়ামী লীগ-স্বাধীনতা এই তিনটি শব্দ অমলিন, অবিনশ্বর, অবিনাশী। ভাষা আন্দোলন, গণআন্দোলন, স্বাধিকার আন্দোলন, স্বাধীনতা যুদ্ধ-স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাসের পাতার পরতে পরতে একটিই নাম আওয়ামী লীগ। সকল পর্যায়ে বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগের হার না মানা নেতৃত্ব এবং নেতাকর্মীদের ত্যাগ তিতিক্ষা ও অঙ্গীকারদীপ্ত সংগ্রামী ভূমিকা ইতিহাসবিদিত। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে অর্জিত হয় আমাদের লাল-সবুজের স্বাধীনতা।’

তিনি আরো বলেন, ‘দীর্ঘ রাজনৈতিক পথ পরিক্রমায় অনেক ঘাত-প্রতিঘাত, চড়াই-উতরাই ও প্রাসাদসম ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে দলটি আজ এ দেশের গণমানুষের ভাব-ভাবনার ধারক-বাহক, অসাম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক ভাবধারার আস্থার প্রতীকে পরিণত হয়েছে এবং গণতন্ত্রের মানসকন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাত ধরেই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলবে।’

সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, ‘স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ইতিহাস একই সূত্রে গাঁথা। ১৯৪৯ সালের এই দিনে জন্মলাভের পর থেকেই এই জনপদে সমাজ-সংস্কৃতি-রাজনীতির সমন্বয় ও রাজনীতিতে সততা ও সম্প্রীতির আদর্শকে দলটি সর্বদা ধারণ করে এগিয়ে চলছে। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই আওয়ামী লীগ বাঙালির মুক্তি সংগ্রামের প্রতিটি পর্বে রেখেছে ঐতিহাসিক অবদান। আর এসব আন্দোলনের পুরোধা ও একচ্ছত্র নায়ক ছিলেন ইতিহাসের মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।’

তিনি আরো বলেন, ‘স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি, মুক্তিযুদ্ধের বিজয়ী দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ হাজারো লড়াই, সংগ্রাম, ত্যাগ-তিতিক্ষা অতিক্রম করে আজ এই পর্যায়ে এসেছে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ এই সফলতার ধারাবাহিকতা ধরে রেখে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তুলবে।’

উল্লেখ্য, স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতৃত্বদানকারী দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ। ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন তারিখে পুরান ঢাকার কে এম দাস লেনের রোজ গার্ডেনে আত্মপ্রকাশ ঘটে বাংলাদেশের ইতিহাস-সমৃদ্ধ রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের।

বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম থেকে প্রতিটি আন্দোলনে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে দলটি জনগণের আস্থা ও ভালোবাসায় যেমন স্থান করে নিয়েছে তেমনি তাঁরই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে টানা তিনবারের সরকার পরিচালনায় দেশকে নিয়েছে উন্নয়নের মহাসড়কে।