* শিক্ষা * শান্তি * প্রগতি

* জয় বাংলা * জয় বঙ্গবন্ধু

ঘূর্ণিঝড় আম্ফান: উপকূলবাসীর পাশে থাকবে ছাত্রলীগ

ঘূর্ণিঝড় আম্ফান: উপকূলবাসীর পাশে থাকবে ছাত্রলীগ

ঘূর্ণিঝড় আম্ফান মোকাবিলায় উপকূলবাসীর পাশে থাকবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। এসব অঞ্চলের সব ইউনিটের নেতাকর্মীদের প্রতি দুর্যোগপূর্ব, দুর্যোগকালীন ও দুর্যোগ-পরবর্তী সময়ে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করার আহবান জানায় সংগঠনটি। ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী সময়ে পুনর্বাসনের জন্য স্বেচ্ছাসেবক টিম গঠন করে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশের দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর থাকায় প্রতিবছরই জলোচ্ছ্বাস, ঘূর্ণিঝড়ের মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ বাংলাদেশে আঘাত হানে। যখনই এদেশের বুকে কোনো দুর্যোগ দেখা দেয় তখনই বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ওই দুর্যোগ কবলিত এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে।

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় আম্ফান বাংলাদেশের উপকূলবর্তী জেলাগুলোতে আঘাত হানতে পারে। তাই উপকূলীয় জেলাসমূহের বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সব নেতাকর্মীদের প্রতি জরুরি নির্দেশনা দেয় সংগঠনটি। নির্দেশনাগুলো হলো-

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান’ সম্পর্কে ও আঘাত হানার সময়ে করণীয় সম্পর্কে উপকূলের বাসিন্দাদের সতর্ক করা। সবাইকে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য পরামর্শ দেয়া। করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সবাইকে মাস্ক পড়ে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার পরামর্শ দেয়া।

এছাড়াও উপকূলবর্তী এলাকায় মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে অতিসত্বর নিরাপদ আশ্রয়ে যাওয়ার পরামর্শ ও উপকূলীয় এলাকায় যেসব কৃষকদের ধান কাটা কার্যক্রমে সহায়তা করা।

এসব বিষয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় বলেন, দেশের সব সংকটে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মানুষের পাশে সবসময় থেকেছে। আম্ফান আঘাত হানার সময়ে ওই এলাকায় আমাদের নেতাকর্মীরা যাতে নিজেরা সতর্ক থেকে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ান তাই আমরা আশা করি। এর আগেও আমরা করোনা সংক্রমণ শুরুর দিন থেকেই সারাদেশে কাজ করে যাচ্ছি। এখন এই আম্ফান ঘূর্ণিঝড় দুর্যোগও আমরা মানুষের পাশে দাঁড়াবো আমাদের সাধ্যমতো।

এর আগে কৃষকদের ধান কাটা কার্যক্রমে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা যার যার এলাকায় যেভাবে এগিয়ে এসেছেন সে বিষয়ে প্রশংসাও করেন তিনি।